বাংলাদেশে ভ্যাকসিনের ট্রায়ালে আগ্রহী চীনের আরেক কোম্পানি

বাংলাদেশে করোনা ভ্যাকসিনের তৃতীয় পর্যায়ের পরীক্ষা করতে চায় চীনের আরও একটি কোম্পানি। দেশটির ভ্যাকসিন জায়ান্ট কোম্পানি আনহুই ঝিফেই লংকম বায়োলজিক ফার্মেসি এজন্য বাংলাদেশের কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে আবেদন করতে যাচ্ছে।

ঢাকায় চীনা দূতাবাসের উপপ্রধান হুয়ালং ইয়ান শনিবার (২১ নভেম্বর) ফেসবুকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

আনহুই ঝিফেই লংকম বায়োলজিক ফার্মেসির ভ্যাকসিনটি নাম ‘জেএফ২০০১’।

হুয়ালং ইয়ান জানান, এ পর্যন্ত এগিয়ে থাকা ভ্যাকসিনগুলোর মধ্যে ‘জেএফ২০০১’ অন্যতম। এটির নিরাপত্তা, উচ্চ প্রতিরোধ ক্ষমতা এবং ব্যাপকহারে উৎপাদন ক্ষমতার কথাও উল্লেখ করেন তিনি।

তিনি জানান, একটি ল্যানসেট রিপোর্টে দেখা গেছে চীনের তৈরি করোনাভ্যাক টিকাটি নিরাপদ এবং কার্যকর। এখন পর্যন্ত চীনের অন্তত পাঁচটি ভ্যাকসিন তৃতীয় পর্যায়ের ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে আছে।

বাংলাদেশে চীনের সিনোভ্যাক কোম্পানির টিকার ট্রায়াল হওয়া কথা। এছাড়াও বাংলাদেশে আন্তর্জাতিক কয়েকটা কোম্পানির টিকার ট্রায়াল শুরু হওয়ার কথা থাকলেও এখন পর্যন্ত কোনোটারই শুরু হয়নি। বাংলাদেশে ট্রায়াল হলে এখানে কোন টিকার কেমন কার্যকারিতা তা যেমন জানা যেত, একইভাবে এসব টিকা আগে পাওয়ার সুযোগ থাকত।

এদিকে গত বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘যখনই টিকার অনুমোদন মিলবে, তখনই আমরা পাব।’

তিনি বলেছেন, ‘ইতিমধ্যেই আমরা এক হাজার কোটি টাকা দিয়ে টিকার বুকিং দিয়ে রেখেছি।’

পাশাপাশি সরকারের উচ্চপর্যায়ের নির্দেশনা অনুসারে এরই মধ্যে দেশে টিকা এলে কারা আগে তা পাবে তার অগ্রাধিকারভিত্তিক তালিকা তৈরি এবং টিকা পাওয়ার পর তা আমদানি, সংরক্ষণ ও প্রয়োগের প্রস্তুতি শুরু হয়ে গেছে। মাঠ পর্যায়ে স্বাস্থ্যকর্মীদেরও প্রস্তুত করা হচ্ছে টিকা প্রয়োগের জন্য।

somoynews

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *